আজ বিএনপির ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী-রাজশাহী টাইমস।

আজ বিএনপির ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী-রাজশাহী টাইমস।

জাতীয়

রাজশাহী টাইমস ডেক্সঃ

বিএনপির ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ। গ্রহণযোগ্য নেতৃত্বের অভাবেই সঙ্কটে পড়েছে দলটি। এমন মূল্যায়ন বিএনপি প্রতিষ্ঠার কারিগরদের। যদিও তারা এখন সাবেক। আর, বর্তমান নেতাদের দাবি, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনাই বিএনপির বড় চ্যালেঞ্জ। 

১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সপরিবারে খুন হওয়ার পর অভ্যুত্থান-পাল্টা অভ্যুত্থানের মধ্যে সামরিক শাসন জারি করেক্ষমতায় সেনাপ্রধান মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমান।

রাজনৈতিক ভিত্তি পেতে প্রথমে জাগদল এবং পরে ১৯৭৮ সালের পয়লা সেপ্টেম্বর প্রতিষ্ঠা করেন বিএনপি বা বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল।  

বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য কর্নেল (অব) অলি আহমেদ বীর বিক্রম বলেন, ১৯৭৭ সালের একটি ডকুমেন্ট আমার কাছে আছে সেখানে জাস্টিস পার্টি নাম ছিল বি এ সিদ্দিকির নাম দিয়ে। সেটা কেটে আমি লিখেছিলাম বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট পার্টি। তিনি আরও বলেন, আমার আপত্তি ছিল তারেক রহমানের রাজনীতি নিয়ে। আমার মূল বক্তব্য ছিল তাকে প্রথমে রাজনীতি শিখতে হবে এবং একজন রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে কাজ করতে হবে। তারপর সে নেতৃত্বে আসবে এতে কেউ বাধা দিবে না। তখন বেগম জিয়া আমার সঙ্গে দ্বিমত পোষন করেন তিনি বলেন আমি তার ছেলের বিরুদ্ধে তার পরিবারের বিরুদ্ধে। আমি তখনই বলেছিলাম হঠাৎ করে এতো বড় দায়িত্ব না দিতে আজকে দেখা যাচ্ছে বিএনপির কি অবস্থা। তাদের নেতৃত্বও ঠিক নেই আদর্শিক রাজনীতিতো পরের কথা। 

১৯ দফা ও খাল খননসহ বেশ কিছু কর্মসূচি দিয়ে আওয়ামী লীগ বিরোধীদের প্লাটফর্ম হিসেবে অল্পদিনেই সারাদেশে সাংগঠনিক ভিত্তি দাঁড় করায় বিএনপি। তবে, ১৯৮১র ৩০শে মে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে জিয়াউর রহমানকে হত্যার পর প্রথমবারের মতো অস্তিত্ব সংকটে পড়ে বিএনপি। এরপরই দলের হাল ধরেন খালেদা জিয়া।

স্বৈরাচারী এরশাদের বিরুদ্ধে প্রায় এক দশক আন্দোলনের পর তার একক নেতৃত্বেই ১৯৯১ সালের নির্বাচনে জয়ী হয় বিএনপি। ১৯৯৬ সালে পরাজয়ের পর ২০০১ সালে আবারো ক্ষমতায় আসে দলটি।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার মোহাম্মদ শাহজাহান ওমর বীর উত্তম বলেন, জিয়াউর রহমান শাহাদাত বরণ করেছেন কিন্তু উনার আদর্শ শাহাদাত বরণ করেন নি। আমরা যারা তার কর্মী আছি তারা এগুলো লালন করি ধারণ করি। আমাদের নেতৃত্বে কোন অসুবিধা নেই, বর্তমান নেতৃত্বে আমরা অটুট আছি। 

২০০৬ সালে ক্ষমতা ছাড়ার পর থেকেই রাজনীতির মাঠে কঠিন সময় পার করছে দলটি। দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকায় বিএনপির সামনে সাংগঠনিক দুর্বলতার সঙ্গে অস্তিত্ব সঙ্কটের প্রশ্নটিও জোরালো হচ্ছে বলে মত বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন আরেক সদস্যের।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা বলেন, বর্তমান সরকার বিএনপিকে ময়দানে দেখতে চায় না। এদিক থেকে একটি অস্তিত্ব সংকট রয়েছে। তারা কমিটি করতে পারছে না, রাজনৈতিক কর্মকান্ড করতে পারছে না। এসব কর্মসূচি না করতে করতে তারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

২০১৮ সালের ৮ই ফেব্রুয়ারি দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত হয়ে কারাগারে যান খালেদা জিয়া। এরপরই রাজনীতির মাঠ থেকে আড়ালে রয়েছেন তিনি। আরেক দফা সংকটে পড়ে বিএনপি। তবে এসব কিছুর জন্য গণতন্ত্রের সঙ্কটকেই দায়ী করছে বিএনপি। 

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, গণতন্ত্র না থাকলে দেশের রাজনীতি থাকে না। আমাদের জন্য এটাই এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। একদিন গণতন্ত্রের সূর্য উঠবেই, কখনো বেশি সময় লাগে কখনো কম সময় লাগে। হয়ত আমাদের এখন বেশি সময় লাগছে।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :