করোনায় সম্বলহীন ১০ হাজার সার্কাস কর্মী প্রধান মন্ত্রীর কাছে শিল্প বাঁচানোর দাবী

করোনায় সম্বলহীন ১০ হাজার সার্কাস কর্মী প্রধান মন্ত্রীর কাছে শিল্প বাঁচানোর দাবী

জাতীয়

মোস্তাফিজুর রহমান জীবন রাজশাহীঃ

করোনায় সম্বলহীন হয়ে পড়েছে ১০ হাজার সার্কাস কর্মী।প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে শিল্প বাঁচানোর জন্য জোর দাবি জানান দি নিউ গোল্ডস্টার সার্কাস মালিক সভাপতি নিরঞ্জন সরকার। নিরঞ্জন সরকার সাংবাদিক দের বলেন,কভিড ১৯ আসার কারনে আমরা প্রায় ১০ হাজার কর্মী ঘরে বন্দী রয়েছি। করোনা ভাইরাসের কারনে দেশে সকল কিচ্ছু বন্ধ রয়েছে।আমরা এর ব্যতিক্রম নয়।মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল হতদরিদ্র পরিবারের পাশে দাড়িয়ে সহযোগিতা করেছেন।

কিন্তু আমাদের কথা একটি বারও কি কেউ ভেবেছেন? ভাবেন নি? কিভাবে আমাদের পরিবার কিভাবে চলছে?কিভাবে আমাদের দিন পার হচ্ছে? সার্কাস মানে আনন্দ, সার্কাস মানে বিনোদন। ছেলে-বুড়ো সকলের কাছেই ভালোলাগার একটি নাম।আমরা সকল মানুুষকে আনান্দ দিয়ে থাকি কিন্তু আজ আমাদের মধ্যে কোন আনান্দ নাই।পেটে ভাত নাই, কর্ম নাই,পরিবার পরিজন নিয়ে কিভাবে চলবো সেটাও জানা নাই।সার্কাসে এক দলভূক্ত বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ব্যক্তি অংশগ্রহণ করেন।

তারা শারীরিক ব্যায়াম, বিশেষ কলা-কৌশল, ভাঁড়, মূকাভিনয়, রশি দিয়ে হাঁটা, পোষা প্রাণীসহ নানা মাধ্যমে তাদের দক্ষতা প্রদর্শন বা উপস্থাপনা করে থাকেন। দেশের এক স্থান থেকে অন্য স্থানে কিংবা এক দেশ থেকে অন্য দেশে শুভেচ্ছা সফরে একদল জিমন্যাস্ট দাঁড়িয়ে থাকাবস্থায় অন্য দল তাদের ঘাড়ে অবস্থান নিয়ে পিরামিডের ন্যায় স্থাপত্যকলার প্রতীকিচিত্র অঙ্কন করেন।

আগুনের গোলকে ঝাঁপ দিয়ে অন্য প্রান্তে চলে যান কিংবা শূন্যে কোন কিছু নিক্ষেপ করে ধারাবাহিকতার সাথে দু’হাত পরিচালনা করেন। দর্শকদেরকে হাসানোর জন্যে ভাঁড় বা ক্লাউন মজার মজার বিষয়াবলীর বহিঃপ্রকাশ ঘটান। শুরুতে ক্লাউনেরা ভীষণ দুষ্টুমী করেন ও পরবর্তীকালে তারা তাদের চাতুর্য্যতা প্রদর্শন করেন।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :