রাজশাহীতে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করল আওয়ামী লীগ

গণতন্ত্রের বিজয় দিবস উপলক্ষে রাজশাহীতে বিজয় র‌্যালি করল আওয়ামী লীগ

রাজশাহী

স্টাফ রিপোর্টারঃ

গণতন্ত্রের বিজয় দিবস উপলক্ষে রাজশাহীতে র‌্যালি করেছে আওয়ামী লীগ। র‌্যালিতে নেতৃত্ব দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য খায়রুজ্জামান লিটন। 

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় কুমারপাড়াস্থ নগর আওয়ামী লীগ কার্যালয় থেকে আনন্দ মিছিলটি বের হয়। আনন্দ মিছিলটি নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদিক্ষন শেষে পুনরায় দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। আনন্দ মিছিল শেষে সেখানে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। পথসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল। সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার।

পথসভায় এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ আজকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে জননেত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে। তাঁর নিরলস পরিশ্রমে বাংলাদেশ বিশ্বে আজ উন্নয়নের রোল মডেল। জনগণ বিএনপি-জামায়াতকে প্রত্যাখান করেছে। তাই তারা ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তকে বেছে নিয়েছে। দেশের জনগণ বিএনপি-জামায়াতের সকল ষড়যন্ত্রকে মোকাবিলা করে আবারও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল বলেন, আওয়ামী লীগ তৃণমূলের দল। তাই দুইজন সামরিক প্রশাসক এই দলকে নিশ্চিহ্ন করতে সম্পূর্ণ রূপে ব্যর্থ হয়েছে। আওয়ামী লীগ গণতান্ত্রিক আন্দোলন করেই রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসীন হয়েছে। যতদিন এই জাতীয় সঙ্গীত ও জাতীয় পতাকা থাকবে, আওয়ামী লীগের প্রত্যেকটা কর্মী জীবন দিয়ে এর মর্যাদা রক্ষা করে যাবে।  

মোঃ ডাবলু সরকার বলেন, নৌকায় ভোট দেওয়ার ফলে দেশরত্ন শেখ হাসিনা বাংলাদশের জনগণের সামনে বিভিন্ন উন্নয়ন বাস্তবায়ন করে দেখিয়েছেন। বাংলাদেশ উন্নয়নের পথে দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। যারা দেশের স্বাধীনতা, বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ, সার্বভৌমত্ব নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করবে। রাজশাহীতে তাদের কোন স্থান হবে না। জননেত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে গণতন্ত্রের বিজয় হয়েছে, এর ধারাবাহিকতা আমরা জীবন দিয়ে হলেও রক্ষা করবো।  

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নওশের আলী, নাঈমুল হুদা রানা, বদরুজ্জামান খায়ের, যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, আহ্সানুল হক পিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. আসলাম সরকার, মীর ইসতিয়াক আহমেদ লিমন, দপ্তর সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম বুলবুল, কৃষি সম্পাদক মীর তৌফিক আলী ভাদু, আইন সম্পাদক অ্যাড. মুসাব্বিরুল ইসলাম, ত্রান ও সমাজকল্যান সম্পাদক ফিরোজ কবির সেন্টু, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক জিয়া হাসান আজাদ হিমেল, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রবিউল আলম রবি, শ্রম সম্পাদক আব্দুস সোহেল, উপ-প্রচার সম্পাদক সিদ্দিক আলম সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :