চারঘাটে পুকুরে মাছ চুরির অভিযোগে শিশুকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

চারঘাটে পুকুরে মাছ চুরির অভিযোগে শিশুকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

রাজশাহী

চারঘাট প্রতিনিধিঃ

রাজশাহীর চারঘাটে পুকুরে মাছ চুরির অভিযোগ তুলে তুষার (১৩) নামের এক শিশুকে গাছে বেঁধে বর্বরোচিত কায়দায় নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

চারঘাট মডেল থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম যুগান্তরকে জানান, শুক্রবার দুপুরের দিকে উপজেলার মেরামতপুর গ্রামের ছহির উদ্দিনের শিশুপুত্র পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র তুষার আহম্মেদ বন্ধুদের সঙ্গে প্রতিবেশী সাবেক সেনা সদস্য জহুরুল ইসলাম জহিরের পুকুরে গোসল করতে যায়। এ সময় তুষারসহ আরও কয়েকজন শিশুকে মাছ চুরির অভিযোগ তুলে ধাওয়া করেন জহুরুল ইসলাম।

‘এক পর্যায়ে শিশু তুষারকে ধরে পুকুর পাড়ে গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে রক্তাক্ত ও জখম করেন জহুরুল ইসলাম। পরে সংবাদ পেয়ে তুষারের আত্মীয় স্বজনসহ প্রতিবেশীরা আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।’

এ ঘটনায় আহত তুষারের বাবা ছহির উদ্দিন বাদী হয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় চারঘাট মডেল থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে মেরামতপুরের নিজ বাড়ি থেকে সাবেক সেনা সদস্য জহুরুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তুষারের পরিবারসহ এলাকাবাসী।

জহুরুল ইসলাম জহির উপজেলার মেরামতপুর গ্রামের জয়েন উদ্দিনের ছেলে বলে জানা গেছে।

শনিবার দুপুরের দিকে আদালতের মাধ্যমে জহুরুল ইসলামকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :