নওগাঁয় নববধূ সুমি হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন

নওগাঁয় নববধূ সুমি হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন

রাজশাহী

স্টাফ রিপোর্টারঃ

নওগাঁয় জাকিয়া সুলতানা ওরফে সুমি (১৫) নামের এক নববধূ কে হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন স্বজনরা। নিহত সুমির স্বজনদের আয়োজনে শনিবার সকাল ১১টার দিকে নওগাঁর মান্দা উপজেলার কাঁশোপাড়া ইউনিয়নের যুক্তিরমোড়ে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেন তারা। 

মানববন্ধন চলাকালে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য দেন, নিহত সুমির বাবা জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, চাচা আব্দুর রশিদ, আরিফ হোসেন, রহিদুল ইসলাম, মিজানুর রহমান, হাসান আলী, মিল্টন মন্ডল, মেহেদী হাসান, আব্দুস সালাম প্রমুখ।বক্তারা বলেন, মোবাইলফোনে মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে ঘটনার প্রায় চার মাস আগে কাঁশোপাড়া ইউনিয়নের রাঙ্গামাটিয়া গ্রামের জাহিদুল ইসলামের মেয়ে জাকিয়া সুলতানা ওরফে সুমিকে একই ইউনিয়নের নিজকুলিহার গ্রামের ইমরান হোসেন বাবুর ছেলে ওয়াহেদ আলী ওরফে জয় (২২) বিয়ে করেন। 

বিয়ের পরই মোটা অংকের টাকা যৌতুক দাবিতে সুমির ওপর নির্যাতন শুরু করেন তার স্বামী সহ শশুর পরিবারের লোকজন। নিহত সুমির বাবা জাহিদুল ইসলাম জাহিদ অভিযোগ করে বলেন, জয় মোবাইলফোনের মাধ্যমে আমার নাবালিকা মেয়েকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই জামাতা জয় ২ লাখ টাকা যৌতুক দাবিতে আমার মেয়ের উপর নির্যাতন করে আসছিল।

তারই জের ধরে আমার মেয়ে সুমিকে নির্যাতন ও শ্বাসরোধে হত্যার পর তার রক্তাক্ত লাশ জানালার গ্রিলে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।তিনি আরও বলেন, ওই ঘটনায় আমার স্ত্রী আসমা খাতুন বাদি হয়ে জামাতা জয় সহ ৬ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। কিন্তু পুলিশ দুইজনের নাম বাদ দিয়ে চারজনের নামে মামলা গ্রহণ করেন। ঘটনার প্রায় ৪ মাস অতিবাহিত হলেও এ মামলার আর কোনো আসামিকে গ্রেফতার করা হয়নি।

আসামিরা প্রকাশ্যে থেকে মামলাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।এব্যাপারে মান্দা থানার ওসি শাহিনুর রহমান জানান, গৃহবধূ সুমি হত্যার ঘটনায় ইতিমধ্যেই মামলার প্রধান আসামি জয় কে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে এবং মামলার তদন্ত কাজ চলছে। এ ঘটনায় অন্যকেউ জড়িত  থাকলে তদন্ত পূর্বক তাদেরও গ্রেফতার করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালে ১১ সেপ্টেম্বর রাতে মান্দা উপজেলার কাঁশোপাড়া ইউনিয়নের নিজকুলিহার গ্রামে স্বামী জয়ের শয়নঘরের জানালার গ্রিলের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় গৃহবধূ সুমির মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত পূর্বক স্বজনদের কাছে মৃতদেহ হস্তান্তর করেন পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী জয়কে আটক করে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করেন পুলিশ।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :