নওগাঁ পৌর নির্বাচন- শীত আর ঘন কুয়াশাকে উপেক্ষা করেই শেষ সময়ে চলছে প্রচারনা

নওগাঁ পৌর নির্বাচন- শীত আর ঘন কুয়াশাকে উপেক্ষা করেই শেষ সময়ে চলছে প্রচারনা

রাজশাহী

স্টাফ রিপোর্টারঃ

নওগাঁ পৌরসভায় বইছে ভোটের হাওয়া। আগামী ৩০ জানুয়ারী তৃতীয় ধাপে ব্যালটের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নওগাঁ পৌরসভা নির্বাচন। নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে, ততই শীতের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে নির্বাচনী প্রচার প্রচারনা। করোনা আর শীতকে পেছনে ফেলে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। দিনরাত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন এবং দিচ্ছেন নানা ধরনের উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি।

শহরের অলিগলির সকল সড়কেই প্রচারণায় ছেয়ে গেছে প্রার্থীদের সাদা কালো পোস্টার-ব্যানারে। পৌর নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে পুরো পৌর এলাকা। বেলা ২টা থেতে রাত ৮টা পর্যন্ত মাইকিং চলছে। মাইকিংয়ের শব্দে জনসাধারনের কান ঝালাপালা হয়ে উঠেছে।

মাইকিং ছাড়াও চলছে সোশ্যাল মিডিয়াতে নির্বাচনী প্রচারণা। নির্বাচনী এলাকায় প্রতিটি পাড়া মহল্লায় ও চা ষ্টলগুলোতে সর্বত্রয় চলছে নির্বাচনী আলাপ আলোচনা। যতই দিন ঘনিয়ে আসছে ততই যেন প্রার্থী ও সমর্থকদের ব্যস্ততা বেড়েই চলেছে। প্রচন্ত শীত আর ঘন কুয়াশাকে উপেক্ষা করেই চলছে নির্বাচনী প্রচারনা ও কর্মীসভা।

প্রার্থীরা প্রতিদিনের মতই সকাল থেকে রাত অবধি ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে প্রতীক সম্মিলিত মার্কা দিয়ে ভোট ও দোয়া কামনা করছেন।তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিতব্য নওগাঁ পৌর নির্বাচনে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনে মেয়র পদে ৫জন ও কাউন্সিলর পদে ৫৭ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৯ জন প্রার্থী মোট ৮১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বিদ্বতা করতে যাচ্ছেন।

মেয়র পদে আওয়ামীলীগ সমর্থিত নৌকা মার্কা মেয়র প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি নির্মল কৃষ্ণ সাহা, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র আলহাজ্ব নাজমুল হক সনি, স্বতন্ত্র প্রার্থী চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ড্রাষ্ট্রির সভাপতি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ইকবাল শাহরিয়ার রাসেল, জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী ইফতেখারুল ইসলাম বকুল, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত প্রার্থী আতিকুর রহমান।

সবাই জয়ের আশাবাদ ব্যক্ত করছেন।তবে, ভোটাররা বলছেন, ভোট নিরপেক্ষ, সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ন ভাবে ভোট হলে, ভোটাররা তাদের নিজ নিজ ভোট দিতে পারলে লড়াই হবে আওয়ামীলীগ, বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে বলেও মন্তব্য সাধারন ভোটারদের।আওয়ামীলীগ প্রার্থী নির্মল কৃষ্ণ সাহা, বলেন, পৌরবাসী আমাকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করলে আমি একটি নানন্দিক নওগাঁ পৌরসভাকে মাদক, সন্ত্রাস মুক্ত ও আধুনিক ডিজিটাল মডেল পৌরসভা হিসেবে পৌর বাসিকে উপহার দিব।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত জননেতা আব্দুল জলিলের ইচ্ছে ছিল নওগাঁর পৌরসভাকে আধুনিক করে গড়ে তোলা কিন্তু দীর্ঘ ১৭ বছর বিরোধী দল থেকে পৌর মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় পৌরসভার কোন উন্নয়ন হয়নি। তিনি মেয়র নির্বাচিত হলে পৌরসভার উন্নয়ন কাজের বাস্তবায়নের স্বার্থে সকল কাজ করবেন এবং বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখবেন বলে তিনি জানান।

অপরদিকে, বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজমুল হক সনি বলেন, আমি পৌরসভার ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। আমাকে তৃতীয় বারের মত পৌরবাসী মেয়র হিসাবে নির্বাচিত করলে পৌরসভার যে সব রাস্তাঘাট, ড্রেনেজ ব্যবস্থা সহ অন্যান্য উন্নয়ন কাজ করতে পারিনি তা সম্পন্ন করে পৌরসভাকে সুন্দর হিসাবে গড়ে তুলবো।

নওগাঁ চেম্বার অব কর্মাস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি ইকবাল শাহরিয়ার রাসেল মেয়র প্রার্থী স্বতন্ত্র থেকে নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বদ্বিতা করছেন।রাসেল বলেন, ভোটারদের কাছে আমার প্রত্যাশা প্রতীক না, তারা ব্যক্তি দেখে ভোট দিবেন। নির্বাচিত হলে আমার অফিস হবে আপনাদের অফিস।

জাতীয় পার্টি লাঙ্গল মার্কা মেয়র প্রার্থী হলেন ইফতারুল ইসলাম বকুল। তিনি বলেন, পৌরবাসি আমাকে নির্বাচিত করলে পল্লীবন্ধু প্রয়াত নেতা সাবেক রাষ্ট্রপ্রতি এইচ.এম. এশাদের আদর্শ নিয়ে আমি নওগাঁ পৌরসভার জন্য কাজ করবো। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাত পাখা মার্কা মেয়র প্রার্থী আতিকুর রহমান। তিনি বলেন, পৌরবাসি আমাকে নির্বাচিত করলে আমি নওগাঁ পৌরবাসির সেবা মুলক কাজ করবো।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও জেলা রিটার্নিং অফিসার মাহমুদ হাসান জানান, ৩০ জানুয়ারি তৃতীয় ধাপে নওগাঁ পৌরসভার ব্যালটের মাধ্যমে ভোট সম্পন্ন করতে সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। নির্বাচন পরিবেশ এখনও পর্যন্ত সুষ্ঠ রয়েছে। প্রার্থীরা তাদের আচরন বিধি মেনে প্রচার প্রচারনা চালাচ্ছে। দুই একটি আচরনবিধি লংঘনের অভিযোগ আসলে আমরা তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা গ্রহন করেছি।

এছাড়াও নির্বাচনের দিনে ভোট কেন্দ্রে আইনশৃংখলার পাশাপাশি মোবাইল টিম, স্টাইকিং ফোর্স, বিজিবি, র‌্যাব, নির্বার্হী ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়োজিত থাকবে। উসৎব মুখর পরিবেশের মধ্য দিয়ে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৪১টি কেন্দ্রে ৩৩২টি ভোট কক্ষে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, ১৯৬৩ সালের ৭ডিসেম্বর নওগাঁ পৌরসভা প্রতিষ্ঠত হয়। পরে ১৯৮৯ সালে নওগাঁ পৌরসভাটি প্রথম শ্রেণির পৌরসভা হিসাবে উন্নীত হয়। বর্তমানে ৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত এ পৌরসভার মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ১৬ হাজার ৯১ জন এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫৭ হাজার ১৭৫ জন এবং নারী ভোটার ৫৮ হাজার ৯১৬ জন।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :