পাবনার ভাঙ্গুড়ায় স্বামীর জন্য মনোনয়ন প্রত্যাহার করলেন দুই সতিন

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় স্বামীর জন্য মনোনয়ন প্রত্যাহার করলেন দুই সতিন

রাজশাহী

স্টাফ রিপোর্টারঃ

পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৗকা প্রতীক পাওয়া নুরু-উন-নবী মন্ডল ওরফে দুলাল মাস্টারের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকা তারই দুই স্ত্রী তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

সোমবার (৭ ডিসেম্বর) মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে দুলাল মাস্টারের ১ম স্ত্রী ফেরদৌসী বেগম ও ২য় স্ত্রী নাসিমা খাতুন তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেন।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, নৌকা প্রতীক পাওয়া প্রার্থী নুরু-উন-নবী মন্ডল ওরফে দুলাল মাস্টারের সঙ্গে তার দুই স্ত্রীও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন।

গত ২৫ নভেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে দুলাল মাস্টারের স্ত্রীরা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন।

স্থানীয়রা জানান, খানমরিচ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নুরু-উন-নবী মন্ডল (দুলাল) স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। বয়স অনুযায়ী তার চাকরি ছিল আরও ১২ বছর। শুধু চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করার জন্য তিনি ছয় মাস আগে চাকরি থেকে স্বেচ্ছায় অবসর নেন। তবে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে তিনি সংশয়ে ছিলেন। তাই তিনি নিজে ও দুই স্ত্রীকে দিয়ে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করিয়ে রেখেছিলেন। তিনি নির্বাচন করতে না পারলে বিকল্প হিসেবে কোনো একজন স্ত্রীকে দিয়ে নির্বাচন করাতে চেয়েছিলেন।

এ বিষয়ে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী নুরু-উন-নবী মন্ডল ওরফে দুলাল মাস্টার বলেন, বিশেষ কিছু কারণে দুই স্ত্রীসহ তিনি নিজে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন। কারো মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যেতে পারতো। সেক্ষেত্রে যাতে পরিবারের কেউ নির্বাচন করতে পারে সেজন্য তিনি বিকল্প ব্যবস্থা নিয়েছেলেন।

পাবনা জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার মাহবুবুর রহমান জানান, পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার চারটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হবে আগামী ২৩ ডিসেম্বর। গত ২৯ নভেম্বর মনোয়নপত্র বাছাই হয়। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ছিল ৬ ডিসেম্বর।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :