বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ হওয়ায় বাগমারায় র‌্যালি ও আলোচনা সভা

বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ হওয়ায় বাগমারায় র‌্যালি ও আলোচনা সভা

রাজশাহী

বাগমারা প্রতিনিধি:

বাংলাদেশের এক অনন্য অর্জন স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ উপলক্ষে সারাদেশের ন্যায় রাজশাহীর বাগমারায় দুই দিন ব্যাপি মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে শনিবার সকাল ১০ টায় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি ভবানীগঞ্জ বাজারের প্রধান প্রধান সড়র প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে মুঠোফোনের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন এবং উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন ঘোষণা করেন রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক।

প্রধান অতিথি বলেন, দেশের প্রতিটি উন্নয়ন তৃণমূল পর্যায়ে তুলে ধরতে হবে। তৃণমূলের সাধারণ মানুষ জানলে উন্নয়ন দীর্ঘস্থায়ী হবে। দেশের উন্নয়ন সম্পর্কে জানা প্রতিটি জনগনের অধিকার। বিভিন্ন দপ্তর কি ভাবে সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়ন করছেন সেই বার্তা সকলের কাছে পৌঁছাতে হবে। কোন মানুষ যেন সরকারী সেবা থেকে বঞ্চিত না হয় সেটা আগে নিশ্চিত করতে হবে।

তৃণমূলের উন্নয়ন নিশ্চিত হলে দেশ দ্রুত এগিয়ে যাবে। দেশের প্রতিটি মানুষের সাথে সুসম্পর্ক রাখতে হবে। জাতির জনকের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয় নিয়ে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

একাডেমিক সুপারভাইজার আব্দুল মুমীত এর পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদুল হাসান, বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাক আহম্মেদ, উপডজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ গোলাম রাব্বানী, কৃষি অফিসার রাজিবুর রহমান, প্রাণিসম্পদ অফিসার ডাঃ মাহাবুবুর রহমান, সমাজসেবা অফিসার আব্দুল মমিন, মৎস্য অফিসার রবিউল করিম, বাগমারা জোনাল অফিসের ডিজিএম মিনারুল ইসলাম, মহিলা বিষয়ক অফিসার খোন্দকার মাক্কামাম মাহমুদা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা প্রকৌশলী সানোয়ার হোসেন, প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার মাসুদুর রহমান, বিএমডি’র সহকারী প্রকৌশলী রেজাউল করিম সহ উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও এলাকার গন্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ। মেলা প্রাঙ্গণে বিভিন্ন দফতরের পক্ষ থেকে ৩২টি স্টল স্থাপন করা হয়েছে।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :