বাগমারায় কীটনাশক পানে শিশুর আত্মহত্যা

বাগমারায় কীটনাশক পানে শিশুর আত্মহত্যা

রাজশাহী

মোস্তাফিজুর রহমান জীবন রাজশাহীঃ

রাজশাহীর বাগমারায় এক মাদ্রসাছাত্রী কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছে। তার নাম সুরাইয়া খাতুন (১০)। সে উপজেলার ভবানীগঞ্জ পৌরসভার উত্তর একডালা গ্রামের সান্টু হোসেনের একমাত্র মেয়ে। মায়ের উপর অভিমান করে সে আত্মহত্যা করেছে বলে জানা যায়। এই ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রতিবেশিরা জানান, গত শনিবার (৩০ জানুয়ারি) বিকেলে লেখাপড়ার বিষয় নিয়ে মায়ের সঙ্গে শিশু সুরাইয়া খাতুনের মনোমালিন্য হয়। এরপর শিশু প্রতিবেশি এক চাচির কাছ থেকে মাথার চুলের উকুন মারার জন্য কীটনাশক চেয়ে নেয়।

সন্ধ্যার পর শিশু কীটনাশক পান করে মায়ের পাশে শুয়ে থাকা অবস্থায় অসুস্থ হয়ে পড়লে বিষয়টি প্রকাশ পায়। পরে বাড়িতে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর রাত ১১টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। সকালে খবর দেওয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। শিশুর বাবা সান্টু হোসেন বলেন, অভিমান করার মত কিছু হয়নি। কীটনাশক পান করেই মায়ের পাশেই শুয়ে ছিল।

মেয়েটি স্থানীয় একটি হাফেজিয়া মাদ্রাসায় কোরআন শিক্ষা গ্রহণ করছিল। সুরাইয়া খাতুন তাঁর একমাত্র মেয়ে। আর কোনো সন্তান নেই। বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, এই ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :