বাগমারায় ইউপি চেয়ারম্যান মুকবুল মৃধার বাড়িতে জিল্লু বাহিনীর হামলা আহত-২

বাগমারায় ইউপি চেয়ারম্যান মুকবুল মৃধার বাড়িতে জিল্লু বাহিনীর হামলা আহত-২

রাজশাহী

বাগমারা প্রতিনিধি: 

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা মুকবুল হোসেন মৃধার বাড়িতে হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে
জিল্লু বাহিনী। সোমবার (৫ এপ্রিল) দুপুর দুইটার দিকে উপজেলার শ্রীপুর এলাকায় চেয়ারম্যান মুকবুল মৃধার বাড়িতে এ হামলা চালায়।

হামলার ঘটনায় আহতরা হলেন, উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের এক নাম্বার ওয়ার্ডের যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম ও আনোয়ার হোসেন।

এলাকাবসী সূত্রে জানা গেছে, আসন্ন শ্রীপুর ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোনোয়নকে কেন্দ্রে করে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা মুকবুল হোসেন মৃধার বাড়িতে পূর্ব পরিকল্পিত এ অর্তকিত হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে জিল্লু বাহিনী ও তার ভাড়াটে গুন্ড এলাকার ইসমাইল রাজাকারের ছেলে বজলু, ওসমানের ছেলে আলাউদ্দীন ও সালাউদ্দীন, মৃত. আজাহার আলীর ছেলে মিরাজ, কাটাখালী থেকে আগত রুস্তমের ছেলে ভাড়াটে মাস্তান কিলার মিলন সহ জিল্লু বাহিনীর সাঙ্গপাঙ্গরা চেয়াম্যানের বাড়িতে রড,রাম দা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ঢুকে দামি জিনিসপত্র ভাংচুর করে ও পরিবারের লোকজনকে বিভিন্নো ভাবে ভয়ভীতি দেখায়।

আহত যুবলীগ নেতা শামীম জানান, জিল্লুর নেতৃত্বে তার গুন্ডা বাহিনীর লোকজন পূর্ব শক্রতার জের ধরে আমাকে তার গুন্ডা বাহিনী জিল্লুর নেতৃত্বে আমার উপর এই অতর্কিত হামলা চালায়।

চেয়ারম্যান মুকবুল হোসেন মৃধা বলেন, পূর্ব শক্রতার জেরধরে দিনে দুপুরে আমার বাড়িতে ঢুকে বর্বরতা হামলা চালায় এই জিল্লু ও তার ভাড়াটে গুন্ডা বাহিনী দিয়ে আমার অনুসারীদের উপর অতর্কিত ভবে হামলা করে। বিশেষ করে শামীমকে আচমকা কিলঘুষি মারে ও সজোরে মাথায় আঘাত করে।

চেয়ারম্যানের ছেলে সোহাগ মৃধা বলেন, আমাদের বাড়িতে যারা অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়েছে তারা সবাই চিহ্নত অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী তাদের দ্রুত গ্রেফতার করে তাদের বিচারের আওতায় আনা হোক।

হামলা ভাংচুর বিষয়ে চেয়ারম্যানের পরিবারের লোকজন বলেন, দিনে দুপুরবেলা কয়েকজন লোক জোর করে বাড়িতে ঢুকে জিনিসপত্র সব ভাংগতে থাকে ও বিভিন্নো ধরনের হুমকি ধামকি দেয়, বর্তমানে গুন্ডা বাহিনীর তান্ডবে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

ঘটনার প্রত্যক্ষদোষী এক ব্যক্তি বলেন, একজন প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা ও জনপ্রতিনিধি সন্মানিত চেয়ারম্যানের বাড়িতে ভাড়াটে মাস্তান নিয়ে হামলা ও ভাংচুর বিষয়টি অত্যান্ত দুখ:জনক ঘটনা। সেই সাথে যারা এই হামলার ঘটনার সাথে জড়িত তাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে হবে।

অভিযোগ অস্বীকার করে জিল্লু এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। মনোনোয়ন নিয়ে এ দ্বন্দের জের ধরে এ ভাংচুর ও সংর্ঘষের ঘটনায় বাগমারা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত বাগমারা থানায় অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি চলছিলো। এ বিষয়ে বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাক হোসেন বলেন, শ্রীপুর এলাকায় দু’পক্ষের সংর্ঘষের ঘটনায় পুলিশ ঘটাস্থাল পরির্দশন করেছে। উক্ত ঘটনায় অভিযোগের পেক্ষিতে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :