বাগমারায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপে সরকারী সম্পত্তি উদ্ধার

বাগমারায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপে সরকারী সম্পত্তি উদ্ধার

রাজশাহী

স্টাফ রিপোর্টারঃ

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে উদ্ধার করা হলো সরকারী ২৭ শতক খাস জমি। সোমবার (২২মার্চ) দুপুরে উপজেলার গনিপুর ইউনিয়নের মহব্বতপুর মৌজায় ১ নং খাস খতিয়ান ভুক্ত জমিটি একই এলাকার হারুনুর রশিদ জোরপূর্বক ভোগ দখল করে আসছিল। সেখানে তিনি একটি পান বরজ তৈরি করেছিলেন।

উক্ত জমি হাসনিপুর গ্রামের মোজাম্মেল হক নামের এক ব্যক্তি সরকারী ভাবে নিজের নামে ১৯৯০ সালে চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত নেয়। সরকারের প্রয়োজনে ওই ২৭ শতক সম্পত্তি/জমি মোজাম্মেল হকের নিকট থেকে সরকার ক্রয় করে।

এদিকে সরকার ওই সম্পত্তি ক্রয় করলেও অবৈধ ভাবে তিন বছর আগে হারুনুর রশিদ জোর পূর্বক একটি পান বরজ তৈরি করে চাষবাস করে আসছিল। বর্তমানে ওই স্থানে নির্মাণ করা হবে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর। মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে যাদের জমি নেই তাদেরকে দেয়া হচ্ছে ঘরগুলো। প্রতিটি ইউনিয়নে যে সকল ব্যক্তিদের নিজস্ব কোন জায়গা-জমি নেই আশ্রয়হীন তাদেরকে দুই কক্ষ বিশিষ্ট এই ঘর নির্মান করে দিচ্ছে সরকার।

দীর্ঘদিন থেকে সরকারী ওই ২৭ শতক সম্পত্তি উদ্ধারের চেষ্টা করলেও তা সম্ভব হয়নি। অবশেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদ এর কারনে উদ্ধার করা হলো ১৩টি বাড়ি নির্মানের জন্য নির্ধারিত স্থান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান, ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা মেহেদী হোসেন, গনিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান রঞ্জু, গনিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক শাসসুল ইসলাম, আইন বিষয়ক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, শ্রীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক জিল্লুর রহমান প্রমুখ।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :