‘মধ্যস্বত্বভোগীদের কারণে লাগামহীন’ মুরগির দাম

‘মধ্যস্বত্বভোগীদের কারণে লাগামহীন’ মুরগির দাম

অর্থনীতি

রাজশাহী টাইমস ডেক্সঃ

আমিষের চাহিদা মেটাতে নিম্ন ও মধ্যবিত্তের বড় ভরসা ব্রয়লার মুরগি। কিন্তু এখন আর এটিও নেই সস্তার তালিকায়। মাস দেড়েকের ব্যবধানে কেজিতে বেড়েছে ৪০ টাকার বেশি। নাভিশ্বাস তুলেছে দেশি ও সোনালি মুরগিও। খামারিরা খাবার ও বাচ্চার দাম বৃদ্ধির দাবি করলেও সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বলছে, সুযোগ নিচ্ছে মধ্যস্বত্বভোগীরা। প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় বলছে, রমজানের আগেই দাম কমাতে নেওয়া হয়েছে উদ্যোগ।

জাকির হোসেন নামে এক মুরগি বিক্রেতা বলেন, দিনশেষে তিনিও একজন ক্রেতা। ব্রয়লারের দাম বেড়ে যাওয়ায় আমিষের চাহিদা পূরণে তাকেও খেতে হচ্ছে হিমশিম।

জাকির হোসেনের মতো নিত্যপণ্যের ভোক্তা আমির হোসেন শেখ বছরজুড়েই পণ্যের একটা যৌক্তিক দামের দাবি জানান।

বাজারে কয়েক সপ্তাহ ধরে লাগামহীন বিভিন্ন জাতের মুরগির দাম। অনুসন্ধানে গাজীপুরের বিভিন্ন খামার ঘুরে জানা যায় খাবার ও বাচ্চার দাম বেড়েছে। তবে মুরগির খাবার ও বাচ্চা সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের দাবি, উৎপাদন ব্যয় বাড়লেও খামার পর্যায়ে বাড়ানো হয়নি দাম।

আফতাব বহুমখী ফামর্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এল ফজলে রহিম খান বলেন, টোয়েন্টে ফাইভ টু সেভেনটি পার্সেন্ট দাম বেড়েছে রয় মেটেরিয়ালসের দাম। তার সঙ্গে কন্টেইনারের প্রায় ৭০ পার্সেন্ট ভাড়া বেড়েছে।

বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিলের আহ্বায়ক মসিউর রহমান বলেন, দাম বাড়ানো হচ্ছে না। বাড়ানোর সুযোগও নেই, কারণ দাম বাড়ালে সমস্যা, খামার নিজের হাতে বানাতে হবে।      

তাহলে সমস্যাটা কোথায়? বাজার ব্যবস্থাপনার দুর্বলতা ও চাহিদা-জোগানের সঠিক তথ্য না থাকার মাশুল গুনছেন ভোক্তারা, এমন দাবি প্রতিষ্ঠানগুলোর।

আফতাব বহুমুখী ফামর্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এল ফজলে রহিম খান বলেন, যখন প্রোডাক্ট বেরিয়ে আসছে বাজারে, তখন কয়েকটা হাত ঘুরিয়ে আসছে, হাত কমাতে হবে, এটাই কাজ।

বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিলের আহ্বায়ক মসিউর রহমান বলেন, চাহিদা বের করতে পারি তাহলে আমরা তাল মিলিয়ে প্রায় ৯৫ % রাখা হয়, দাম বাড়বে ৫ টাকা এদিক ওদিক। ২০ টাকা এদিক-ওদিক হবে না।

আর মন্ত্রণালায় বলছে, মুরগির দাম কমাতে নেওয়া কিছু উদ্যোগ দ্রুত কার্যকর হবে বাজারে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ বলেন, যারা উৎপাদক তাদের আমরা সংগঠিত করা চেষ্টা করছি। মধ্যস্বত্বভোগীরা যত কমানো যাবে দাম তত নিয়ন্ত্রণে রাখা যাবে। এ রকম একটা অবস্থার মধ্যে আমরা আছি।

উৎপাদকরা যেন সরাসরি বাজারে বিক্রি করতে পারেন সে ব্যাপারেও কাজ চলছে বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :