যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে এগারো লাখের বেশি করোনা রোগী শনাক্ত

যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে এগারো লাখের বেশি করোনা রোগী শনাক্ত

আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেক্সঃ

ওমিক্রনের প্রভাবে বিশ্বের বেশ কিছু দেশে করোনা সংক্রমণ বেড়েই চলছে। সোমবার যুক্তরাষ্ট্রে রেকর্ড এগারো লাখের বেশি করোনা শনাক্ত হয়েছে। দেশটিতে রেকর্ড হয়েছে হাসপাতালে রোগী ভর্তিতেও। এদিকে, সংক্রমণ বাড়লেও করোনার বিধিনিষেধ শিথিল করছে ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশ।


যুক্তরাষ্ট্রে ওমিক্রনের প্রভাবে করোনার সংক্রমণ বেড়েই চলছে।  রয়টার্সের হিসেবে সোমবার রেকর্ড এগারো লাখের বেশি করোনা শনাক্ত হয়েছে।  পাশাপাশি হাসপাতালে রোগী ভর্তির সংখ্যা ১ লাখ ৩২ হাজার ৫শর বেশি।  যা এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ।  

তিনসপ্তাহে দেশটিতে করোনা শনাক্ত বেড়েছে তিনগুণ।  এতে ভেঙে পড়ার মুখে পড়েছে মার্কিন স্বাস্থ্য ব্যবস্থা।  কর্মীসহ বিভিন্ন সংকটে কম গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্রোপচার পর্যন্ত বাতিল করছে বেশিরভাগ হাসপাতাল।  

রয়টার্স জানিয়েছে, করোনাভাইরাস মহামারী শুরুর পর থেকে গত দুই বছরে বিশ্বের আর কোথাও এক দিনে এত রোগী শনাক্ত হয়নি।    

এর আগের রেকর্ড যুক্তরাষ্ট্রেরই ছিল, ওমিক্রনের বিস্তার শুরুর পর গত ৩ জানুয়ারি ১০ লাখ ৩ হাজার মানুষের কোভিড শনাক্ত হয়েছিল সেদিন।

রয়টার্স লিখেছে, প্রতি সোমবার যুক্তরাষ্ট্রে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেশি থাকছে, এর একটি কারণ শনি ও রোববার ছুটির দিনে অনেক রাজ্য থেকে নমুনা পরীক্ষার তথ্য আসতে দেরি হচ্ছে।  

সাত দিনের গড় হিসাব করলে দেখা যাচ্ছে, প্রতিদিন গড়ে ৭ লাখের বেশি রোগী শনাক্ত হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, প্রাথমিক গবেষণার ওই তথ্যের ভিত্তিতে ওমিক্রনকে কম গুরুতর বলার সুযোগ নেই, কারণ হাসপাতালে রোগীর চাপ অনেক বেশি বেড়ে গেলে এবং সংক্রমণের ফলে স্বাস্থ্যকর্মীর সংকট দেখা দিলে তা বড় ধরনের বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে। 

সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন এলাকায় স্কুল খোলা রাখাও কঠিন হয়ে পড়েছে। আক্রান্ত হওয়ায় শিক্ষক ও স্কুল বাসের চালকরা কাজে যোগ দিতে পারছেন না, শিক্ষার্থীরাও অনুপস্থিত থাকছে।

বিপুল সংখ্যক কর্মী কোভিডে আক্রান্ত হওয়ায় নিউ ইয়র্ক শহরে পাতাল রেলের তিনটি লাইন বন্ধ রাখা হয়েছে।

কোভিড রোগী বাড়ার সাথে সাথে মৃত্যুও বাড়ছে যুক্তরাষ্ট্রের হাসপাতালগুলোতে। এখন প্রতিদিন গড়ে ১৭ শ মানুষের মৃত্যু হচ্ছে, যা গত কয়েক সপ্তাহে ১৪ শর নিচে ছিল।

ফাইজারের সিইও সোমবার বলেছেন, ওমিক্রনকে সামাল দেওয়ার জন্য বিশেষভাবে একটি টিকা তৈরি করা প্রয়োজন বলে তিনি মনে করছেন। আগামী মার্চের মধ্যে তার কোম্পানিই হয়ত একটি টিকা আনতে পারবে।একই দিনে আরেক ভয় জাগানো রেকর্ডের মুখোমুখি হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার দেশটির হাসপাতালগুলোতে ১ লাখ ৩৫ হাজারের বেশি কোভিড রোগী ভর্তি ছিল, যা এ যাবৎকালের সর্বোচ্চ।   

এর আগের রেকর্ডটি ছিল গতবছর জানুয়ারিতে, সে সময় হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ১ লাখ ৩২ হাজার ছাড়িয়েছিল।

রয়টার্স বলছে, ওমিক্রনের বিস্তার শুরুর পর গত তিন সপ্তাহে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা বেড়ে তিনগুণ হয়েছে।  

গত নভেম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন পুরো বিশ্বেই প্রাধান্য বিস্তার করছে। রোগীর চাপে উদ্বেগ বাড়ছে ইউরোপেও।

গতবছর আধিপত্য বিস্তার করা ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের চেয়ে অনেক বেশি দ্রুত ছড়ায় ওমিক্রন। তবে গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তির ঝুঁকি ডেল্টার চেয়ে কম বলে প্রাথমিক গবেষণায় দেখা যাচ্ছে।

এদিকে, করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে কানাডায়।  কর্মী সংকটে স্বাস্থ্যসেবায় দেখা দিয়েছে বিপর্যয়।  এরইমধ্যে দেশটিতে ভ্রমণের ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে মার্কিন প্রশাসন।  এদিকে, দ্বিতীয়বার করোনা আক্রান্ত হয়েছেন মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ। 

রেকর্ড হয়েছে অস্ট্রেলিয়ায়ও, একদিনে শনাক্ত ৮৬ হাজারের বেশি।  দেশটিতে এ পর্যন্ত ১১ লাখের বেশি শনাক্ত হলেও এর বেশিরভাগই হয়েছে গত দুই সপ্তাহে। 

শীতকালীন অলিম্পিককে সামনে রেখে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের নানা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে চীন।  বেইজিংয়ে জারি করা হয়েছে সতর্কতা।  গেল দুই সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ২০টিরও বেশি ফ্লাইট বাতিল করেছে দেশটি। 

ফ্রান্স, ইতালিসহ ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশেও প্রায় প্রতিদিনই হচ্ছে শনাক্তের নতুন রেকর্ড।  চেক প্রজাতন্ত্রসহ কয়েকটি দেশে বেড়ছে হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যাও।  তবে, এর মাঝেও বিধিনিষেধ শিথিল করছে ইউরোপের কয়েকটি দেশ। 

এদিকে, ভারতে গেল কয়েকদিন ধরে বাড়লেও সোমবার শনাক্ত কমেছে সাড়ে ছয় শতাংশ।  শনাক্তের সংখ্যা ১ লাখ ৬৮ হাজারের বেশি।  এছাড়া ভারতের স্বাস্থ্যবিভাগ জানিয়েছে ডেল্টার তুলনায় ওমিক্রনের এই ঢেউয়ে হাসপাতালে ভর্তি কমেছে। দিল্লিতে আগামি দুই দিনের মধ্যেই ৩য় ঢেউয়ের সংক্রমণ চূড়ায় পৌঁছাবে বলে সতর্ক করেছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :