রাজশাহীতে ইনসেপ্টা ফার্মার সাবেক রিজিওনাল ম্যানেজার আনিসুরের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

রাজশাহীতে ইনসেপ্টা ফার্মার সাবেক রিজিওনাল ম্যানেজার আনিসুরের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

রাজশাহী

লিয়াকত রাজশাহীঃ

রাজশাহীতে ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালের সাবেক রাজশাহী রিজিওনাল ম্যানেজার আনিসুর রহমান আনিসসহ তার চাঁদাবাজ ও মাস্তানবাহিনীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগী রাজশাহী ইন রেসিডেন্সিয়াল লিঃ প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী মােঃ আবু ইউসুফ মাসুদ।

তিনি সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে তার লিখিত বক্তব্য বলেন, বিবাদী ১। মােঃ আনিসুর রহমান ( ৪৫ ) , পিতাঃ মৃতঃ নূর মােহাম্মদ , সাং – আহমেদ নগর , সপুরা , থানা – বােয়ালিয়া , মহানগর রাজশাহী আমার ব্যবসায়ীক পার্টনার ছিলেন। বিবাদী ব্যবসার সুবাদে ২৩,০০,০০০ / – (তেইশ লক্ষ) টাকা আমার নিকট হতে পাবেন। উক্ত টাকা গত ২০/০৩/২০২১ খ্রিঃ পরিশােধের কথা থাকলেও বিল্ডিংয়ের কাজ অসম্পূর্ন থাকায় উক্ত টাকার মধ্যে সম্পূর্ণ টাকা পরিশােধ  করতে না পেরে ৯,০০,০০০/- (নয় লক্ষ) টাকা নগদ বিবাদীর বন্ধু মাে : আনােয়ার হােসেন , পিতা – আব্দুল গফুর , সাং – হােল্ডিং নং ১০৪ , বহরমপুর থানা রাজপাড়া , মানগর রাজশাহী এর মাধ্যমে পরিশােধ করি । 

কিন্তু পরবর্তীতে গত ৩/০৪/২০২১ খ্রিঃ তারিখ রাত্রি ৭.৩০ ঘটিকার সময় ১ নং বিবাদীর ভাড়াটিয়া গুন্ডা বিবাদী ২। মােঃ শিপন ( ৪৫ ) , পিতা – শামসুল ইসলাম , সাং – আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের ( ৪ র্থ তলা ) , বােয়ালিয়া , রাজশাহীসহ অজ্ঞাত আরাে কয়েকজন সন্ত্রাসী আমার অফিসে এসে তারা ১ নং বিবাদীর অংশের দাবীদার হিসেবে আবারাে ২৩ লক্ষ টাকা পুনরায় দাবী করেন । 

তারা বলেন,এখন যদি তেইশ লক্ষ টাকা না দিস তবে হােটেলের মালিকানা বুঝিয়ে দে। বিবাদীরা আরাে বলেন টাকা না দিলে তারা প্রতিষ্ঠানে তালা বন্ধ করে দিবেন।বিবাদীরা চলে যাওয়ার সময় আমাকে মেরে ফেলার হুমকিসহ আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন, তখন আমি ঘটনা বেগতিক দেখে বোয়ালিয়া থানা পুলিশকে বিষয়টি জানায় এবং সাথে থানা থেকে উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক মোঃ শাহিনুর রহমান কে আমার হোটেলে পাঠানো হয়। 

এসআই শাহিনুর বিবাদী শিপনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যাওয়ার কথা বললে, ঘটনা স্থলে উপস্থিত রাসিকের ১০ নং ওয়ার্ড আওয়ামিলীগ সভাপতি মোঃ জাফর তাকে (শিপনকে) ছেড়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ করে তখন আমি সহ উপস্থিত সকলে সার্বিক বিষয় এবং সভাপতি জাফরের সম্মানের কথা ভেবে শিপনকে ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।সভাপতি জাফর আমার কোম্পানির প্যাডে জিম্মা নামায় সই করে শিপনকে নিয়ে যায়।

ঘটনার বিষয়টির সাক্ষী ১। রমজান আলী ( ২৯ ) , পিতা – আব্দুল মান্নান , সাং – উপশহর ১/২৬০ থানা – বােয়ালিয়া , জেলা – রাজশাহী , ২। কৌশিক আহম্মেদ ( ৩২ ) , পিতাঃ মােঃ দুদু মিয়া , সাং- ১৩২/১ উপশহর , থানা – বােয়ালিয়া , মহানগর রাজশাহী সহ আরাে অনেকেই জানেন এবং শুনেছেন।

পরবর্তীতে ১ নং বিবাদী স্থানীয় সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে আমাকে ঘায়েল করতে না পেরে গত ৪.৪. ২০২১ ইং তারিখে রাজশাহী সি এম এম কোর্টে ১৪৫ ধারায় একটি মামলা দায়ের করে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন। বিবাদী আনিস মামলা করেও ক্ষান্ত হননি তিনি গত ৬ তারিখে আনুমানিক সকাল ১১.৩০ ঘটিকার সময় আমার উপস্থিতে  তার স্ত্রীকে সাথে নিয়ে আমার হোটেলে এসে স্টাফ দেরকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে যায় এবং বলে যায় প্রয়োজন হলে তোদের বসকে গুম করে দিয়ে আমি এই হোটেলের মালিক হব।

আমি তার এই হুমকি ও মিথ্যা মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এবিষয়ে বিবাদী আনিসুর রহমান আনিসের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তার ফোন পাওয়ায় তার কোন বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :