রাজশাহীতে গ্রীন পার্ক প্রকল্প'র বহুতল ভবন নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

রাজশাহীতে গ্রীন পার্ক প্রকল্প’র বহুতল ভবন নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

রাজশাহী

লিয়াকত হোসেন রাজশাহীঃ

রাজশাহীতে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে বহুতল ভবনের সংখ্যা। বিগত তিন থেকে চার বছরে রাজশাহীতে শতাধিক বহুতল ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। বেশীর ভাগ ভবন ডেভেলপাররা তৈরী করছেন। অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে এসব ভবনের ক্ষেত্রে অধিকাংশই নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই নির্মিত হচ্ছে। বেশিরভাগ বহুতল ভবন অপরিকল্পিতভাবেই নির্মিত হওয়ায় বাড়ছে ঝুঁকি।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, ২০২১ সালে নগরীর কাজলায় কয়েকজন শিক্ষক মিলে গ্রীন পার্ক প্রকল্প নামে বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ শেষ করেন। চুক্তি অনুযায়ী ভবনের মালিকগণের মধ্যে প্রথম মালিক সাইফুল ইসলাম। তিনি বর্তমানে অগ্রনী স্কুলের প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন এবং উপর ভদ্রা এলাকার একটি ফ্ল্যাটে বসবাস করছেন।

দ্বিতীয় মালিক আল-আমিন সরকার। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ ডিপার্টমেন্ট প্রধান হিসেবে কর্মরত আছেন। তৃতীয় মালিক প্রফেসর মে মতিউর রহমান। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগে কর্মরত আছেন। আর পঞ্চম মালিক প্রফেসর ড. পাপিয়া সুলতানা। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগে কর্মরত আছেন।

অভিযোগ উঠেছে , গ্রীন পার্ক প্রকল্পে স্বত্বাধিকারীরা মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (আরডিএ) এক শ্রেণির অসাধু কর্মকর্তা দিয়ে বহুতল ভবনের অনুমোদন নিয়েছেন। ভবন অনিয়মের বিষয়ে কথা বলায় এক মালিক পক্ষকে মালিকানা থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

নামপ্রকাশে ঐ ব্যক্তি বলেন, প্রথম থেকে তিনি তাদের সাথে ছিলেন। কিন্তু কিছু অনিয়ম দেখতে পাওয়ায় সে বিষয়ে প্রতিবাদ করায় তাঁকে ভবনের মালিকানা থেকে বাদ দিয়ে অন্য একজনকে শেয়ার দিয়েছে বলে অভিযোগ করেন এই ভুক্তভোগী। নগরীতে গত বছরের ব্যবধানে গড়ে উঠেছে অসংখ্য বহুতল ভবন। আরডিএ থেকে ৫ তলা পর্যন্ত অনুমোদন নিয়ে নগরীতে ৮০ ভাগের বেশি বহুতল (১০-১২ তলা) গড়ে তোলা হয়েছে। আর এসব ভবনের বিষয়ে আরডিএ কোনো পদক্ষেপই গ্রহণ করছে না বলে অভিযোগ উঠেছে আরডিএ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

এবিষয়ে মালিকদের মধ্যে সাইফুল ইসলামের নিকট থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাঁরা আরডিএ থেকে প্ল্যান পাশ করিয়ে নিয়মের মধ্যে থেকে কাজ করে যাচ্ছেন। আপনার নিউজ করার থাকলে করেন। অনিয়মের বিষয়ে অপর মালিক পক্ষ আল আমিন সরকার শিকার করে বলেন, তাঁর আট তলার উপরে মাত্র কয়েকটি ফ্ল্যাট করেছেন। যা আরডিএ অবগত আছেন। তিনি আরো বলেন, ভবন মালিকদের সভাপতি সাইফুল ইসলাম তিনিই এ বিষয়ে বক্তব্য দিতে পারবেন।

এ বিষয়ে আরডিএ এর আবুল কালাম আজাদ বলেন, নোটিশ পাঠানো হয়েছে। লিখিত অভিযোগ দিলে অভিযোগকারি শুনানিতে উপস্থিত থাকতে পারবেন বলে জানান তিনি।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :