রাজশাহীতে  নারী দিয়ে ফাঁসিয়ে অপহরণ ও চাঁদা আদায় চক্রের ৫ জন গ্রেফতার 

রাজশাহীতে  নারী দিয়ে ফাঁসিয়ে অপহরণ ও চাঁদা আদায় চক্রের ৫ জন গ্রেফতার 

রাজশাহী

লিয়াকত হোসেন রাজশাহীঃ 

রাজশাহীতে পরিকল্পিতভাবে নারী দিয়ে বিভিন্ন ভাবে প্রলোভন দেখিয়ে ফাঁসিয়ে অপহরণ ও অপহরণের পর  প্রাণনাশের হুমকী দিয়ে চাঁদা আদায় চক্রের মুলহোতাসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করে আরএমপি মহানগর ডিবি পুলিশের একটি টিম।  

বাদী রাজপাড়া থানাধীন  ডিঙ্গাডোবা নিমতলা ঘোষের মাহাল এলাকার  মোঃ আবু বক্কর বাক্কার(৫৯)এর অভিযোগের পেক্ষিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা হলো নগরীর ডিঙ্গাডোবা নিমতলা ঘোষমহল এলাকার মোসাঃ হানিফা খাতুন(৩১) তার, স্বামীর নাম মোঃ মুন্না, ২। মোঃ আব্দুল মমিনেএ ছেলে মোঃ মুন্না(৩৫)।

০৩। মোঃ মনিপ(২৭) ৪। মোঃ কবির হোসেন খিচ্চু(৩৩),৫। রাজশাহী কর্ণহার ডাংগের হাট এলাকার  মোসাঃ ফরিদা বেগম(৪০), স্বামী-মৃত দুলাল শাহিন শাহ্।

পুলিশ সুত্রে জানা যায়,রাজশাহী মহানগরীর  ডাঃ মাহবুবুর রহমান(৪২) এর মালিকানাধীন দুইতলা বিল্ডিং এর নিচ তলায় ভাড়া থাকে। তার ভাড়া বাসায় থাকা ২/৩ টি নষ্ট ফ্যান, ০১ টি পুরাতন সোফাসেট এবং অপ্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র বিক্রয় করবে বলে বাসায় যেতে বলে।

 তিনি মহিলার দেওয়া ঠিকানা অনুযায়ী তার ভাড়া বাসার সামনে এসে মোবাইল ফোনে ফোন করলে মহিলাটি বাসার বাহিরে এসে তাকে নিয়ে উক্ত বাড়ির নিচ তলার একটি রুমে বসান। 

কিছুক্ষণের মধ্যে ০৩ টি ছেলে ও আরোও ০১ টি মেয়ে উক্ত রুমে প্রবেশ করার সঙ্গে সঙ্গেই উল্লেখিত হানিফা খাতুন তার পরিহিত সালোয়ার কামিজ খুলে ব্রা ও পেন্টি পরা অবস্থায় তাকে জড়িয়ে ধরে। তার সাথে থাকা অন্যান্যরা ভিকটিমের পরিহিত কাপড় চোপড় খুলে ফেলে উলঙ্গ অবস্থায় মহিলাটির সাথে নগ্ন স্থির ছবি তোলে ও ভিডিও করে।

 উক্ত নগ্ন ছবি ও ভিডিও ফেসবুক/ইন্টারনেটে ছেড়ে দিয়ে তার মান সম্মান হানী করবে এবং স্ত্রী-সন্তানকে দেখাবে বলে হুমকী প্রদান করে নগদ তিনলক্ষ টাকা মুক্তিপন ও চাঁদা দাবী করে। 

ভিকটিম মোঃ আবু বক্কর বাক্কার মান সম্মান বাঁচানোর তাগিদে আকুতি মিনতি করাকালীন আসামীরা তার কাছে থাকা নগদ-৪,০০০/- জোর পূর্বক ছিনিয়ে নেয়। তারা তাকে চড় থাপ্পড় মেরে প্রাণ নাশের হুমকী প্রদান করে। 

ভিকটিম তাদের হাত-পা ধরে টাকা দেওয়ার কথা বলে ঘটনাস্থল থেকে বের হয়ে গিয়ে ধার কর্জ করে মুক্তিপন ও চাঁদার ৩০,০০০/- টাকা পরের সকালে এনে আসামীদের বাড়িতে দেয়।

 ঘটনার বিষয়ে তিনি ০৩জুন শুক্রবার  বেলা ১১.০০ টায় মহানগর গোয়েন্দা অফিসে এসে ডিসি(ডিবি) বরাবর মৌখিক অভিযোগ দেন এবং বিস্তারিত ঘটনা 

জানান। পরে ডিবি পুলিশের একটি বিশেষ টিম অভিযান চালিয়ে গতকাল শুক্রবার বিকেলে ০৪.১০ ঘটিকায় ঘটনাস্থল রাজপাড়া থানাধীন ডিঙ্গাডোবা ব্যাংক কলোনী গোলজার হোসেন লেন ডাঃ মাহবুবুর রহমান(৪২) এর মালিকানাধীন দুইতলা বিল্ডিং এর নীচ তলা থেকে আসামীদেরকে গ্রেফতার করেন।

এসময়  আসামীদের হেফাজত থেকে ভয়ভীতি ও প্রতারণার মাধ্যমে মুক্তিপন ও চাঁদা বাজী করে হাতিয়ে নেওয়া ৩৪,০০০/- টাকার মধ্য হতে নগদ ১০,০০০/-টাকা এবং প্রতারনার কাজে ব্যবহৃত পাঁচটি বিভিন্ন মডেলের মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। এ সংক্রান্তে রাজপাড়া থানায় একটি নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :