রাজশাহীতে প্রেমের ফাঁদে ফেলে অর্থ আদায় চক্রের দুই বোনসহ মূল হোতা আটক

রাজশাহীতে প্রেমের ফাঁদে ফেলে অর্থ আদায় চক্রের দুই বোনসহ মূল হোতা আটক

রাজশাহী

লিয়াকত রাজশাহী:

সহজ-সরল ব্যক্তিদের নারী দিয়ে প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে প্রেমের ফাঁদে ফেলে পরিকল্পিতভাবে ফাঁসিয়ে অর্থ আদায় চক্রের মূল হোতা দুই বোনসহ তিন জনকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। আটককৃতদের মধ্যে ২ জন নারী ও ১ জন পুরুষ রয়েছে। আজ বুধবার দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে নগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল তাদের আটক করে।

আটককৃতরা হলেন, রাজশাহী মহানগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানাধীন নগরপাড়া আদর্শগ্রাম (গুচ্ছগ্রাম) এলাকার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে মাসুদ রানা ওরফে বাবলু (৪৮), নগরীর রাজপাড়া থানাধীন বহরমপুর ব্যাংক কলোনী এলাকার ৮৬ নং বাড়ির কাজলের ভাড়াটিয়া বুলনপুর জিয়ানগর এলাকার মাসুদের দুই মেয়ে শোভা বেগম (২৬) ও আরিফা (২১)।

রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার আরেফিন জুয়েল এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, আটককৃত দুই বোন শোভা ও আরিফা এবং তাদের সহযোগী মাসুদ রানা কৌশলে তাদের পরিকল্পিত ব্যক্তিকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে। এরপর অপহরণ করে নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন ও মারধর করে টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। চলতি মাসের ১৯ তারিখ রাত পৌনে ৮টার দিকে নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানাধীন সিটি বাইপাস রোড সংলগ্ন হলদারপাড়াগামী রাস্তার উপর গোলাম মাওলা ওরফে মমিন (২৬) নামের যুবকের সাথে এ ধরণের একটি ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোড়ী মমিন নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানাধীন শেখের চক স্বচ্ছ টাওয়ারে পেছনের এলাকার গোলাম রহমানের ছেলে। এরপর তিনি গত বুধবার ২১ এপ্রিল নগর গোয়েন্দা পুলিশকে বিষয়টি লিখিতভাবে জানায়। নগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল তাৎক্ষণিক তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ছিনতাইকারীদের অবস্থান শনাক্ত করে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় রাতভর অভিযান চালিয়ে অপহরণ ও ছিনতাই চক্রের মূল হোতা দুই বোন ও অপর একজনকে গ্রেফতার করে। আরো ৩ জন পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ছিনতাইকৃত মোবাইলও উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরো জানান, জিজ্ঞাসাবাদে আটক দুই বোন জানিয়েছে, তাদের দুই বোনের স্বামী তাদের ছেড়ে চলে গেছে। এটি তাদের পেশা। এভাবেই তারা প্রেমের ফাঁদে ফেলে কৌশলে ডেকে নিয়ে জিম্মি করে টাকা আদায় করে চলে। আসামীদের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :