রাজশাহীর কাটাখালী পৌর মেয়র আব্বাস আলী গ্রেপ্তার

রাজশাহীর কাটাখালী পৌর মেয়র আব্বাস আলী গ্রেপ্তার

রাজশাহী

স্টাফ রিপোর্টারঃ

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যসহ একটি অডিওক্লিপ ছড়িয়ে পড়ার পর আজ সকালে রাজধানীর ঈসা খা হোটেল থেকে রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

গত আগস্ট মাসে একটি বৈঠক থেকে রেকর্ড করা হয় ওই অডিও। সেখানে দলের একজন প্রভাবশালী নেতাকে নিয়ে বিরূপ কথাবার্তাও বলতে শোনা যায় উপজেলা আওয়ামী লীগের আব্বাসকে।

আব্বাস আলী রাজশাহীর পবা উপজেলার কাটাখালী পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক। তিনি আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত হয়ে টানা দুই মেয়াদে মেয়রের দায়িত্বে আছেন।

ছড়িয়ে পড়া ১ মিনিট ৫১ সেকেন্ডের অডিওতে মেয়র আব্বাস একজনকে বলছেন, ‘আমাদের যে অংশটা হাইওয়েতে। সিটি গেট আমার অংশে। ফার্মকে দিয়েছি তারা বিদেশি স্টাইলে সাজিয়ে দিবে, ফুটপাত, সাইকেল লেন টোটাল আমার অংশটা। কিন্তু একটু থেমে গেছি গেটটা নিয়ে। একটু চেঞ্জ করতে হচ্ছে যে ম্যুরালটা দিয়েছে বঙ্গবন্ধুর। এটা ইসলামি শরিয়ত অনুপাতে সঠিক নয়। এ জন্য আমি ওটা থুব না। সব করব, যা কিছু আছে। খালি শেষ মাথাতে যেটা ওটা।’

অডিওতে আব্বাস আলীকে আরও বলতে শোনা যায়, ‘আমি দেখতে পাচ্ছি, আমাকে যেভাবে বুঝাইল, ম্যুরালটা দিলে ঠিক হবে না। আমার পাপ হবে। এটা কেন দিব, দিব না। আমি তো কানা না, আমাকে যেভাবে বোঝাইছে, তাতে আমার মনে হয়েছে যে ম্যুরালটা হলে আমার ভুল হবে। এ জন্য চেঞ্জ করছি। এ খবরটাও যদি আবার যায়, তাহলে আমার রাজনীতির বারোটা বাজবে, আরে যে বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল দিতে চাচ্ছে না। তাহলে বঙ্গবন্ধুকে খুশি করতে গিয়ে আল্লাহকে নারাজ করব নাকি। এটা নিয়ে রাজনীতি করবে শিউর। রাজনীতি করলে কিছু করার নাই। তাই বলে মানুষকে সন্তষ্ট করতে গিয়ে আল্লাহকে অসন্তুষ্ট করা যাবে না তো।’

এই কথাগুলো বলার পর তিনি ৯৪ শতাংশ ভোটে মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন, সে কথা মনে করিয়ে দেন। কথাগুলো কারও সঙ্গে মেয়র করছিলেন। তিনিও অস্পষ্ট কণ্ঠে মেয়রের কথায় সায় দিচ্ছিলেন। তবে কবে কোথায় এই কথোপকথন হয়েছে, তা জানা যায়নি।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :