রাজশাহী জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) কর্তৃক প্রতারণার ফাঁদ পেতে পুলিশের থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়া এক যুবক গ্রেপ্তার

রাজশাহী জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) কর্তৃক প্রতারণার ফাঁদ পেতে পুলিশের থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়া এক যুবক গ্রেপ্তার

রাজশাহী

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বাংলাদেশ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের অগণিত পুলিশ সদস্যের কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়া এক প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে রাজশাহী জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। গত শুক্রবার (৩০ জুলাই) রাজশাহী জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার একটি টিম দিনাজপুরের বিরামপুর থানা পুলিশের সহযোগিতায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত প্রতারকের নাম মো. আল আমিন সরকার। সে দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার চাঁদপুর গ্রামের মো. আপেল মাহমুদ সরকারের ছেলে।

জেলা পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) ইফতেখায়ের আলম স্বাক্ষরিত এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১০ জুলাই রাজশাহী জেলা পুলিশের এক সদস্যের কাছে ওই প্রতারক ফোন করে। ওই পুলিশ সদস্যকে প্রথমে সালাম দিয়ে ওই প্রতারক বলেন যে, ‘আমি পুলিশ হেড কোয়ার্টারের সংস্থাপন শাখার ইন্সপেক্টর সালাম বলছি। আপনার নাম পার্বত্য জেলার জন্য নমিনেশন দেয়া হয়েছে। আপনি যদি ঠেকাতে চান তাহলে যোগাযোগ করেন।’

এমন ফোন পেয়ে ভুক্তভোগী পুলিশ সদস্য রাজশাহী জেলা পুলিশের আরওআই নিরঞ্জন কুমারকে জানালে তিনি বিষয়টি রাজশাহীর পুলিশ সুপারকে জানান। পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) সনাতন চক্রবর্তীকে বিষয়টি উদ্ঘাটনের নির্দেশনা দেন। পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় এই প্রতারককে ধরতে অভিযান শুরু করা হয়। পরে ২০ দিনের প্রচেষ্টায় গত ৩০ জুলাই প্রতারককে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জেলা পুলিশের মুখপাত্র ইফতেখায়ের আলম বলেন, ২০১৫ সাল থেকে এই প্রতারক এমন কাজের সাথে জড়িত বলে আমরা জানতে পেরেছি। তার প্রকাশ্য কোন জীবিকা নাই এবং প্রতারণার মাধ্যমেই সে তার জীবিকা নির্বাহ করে বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে স্বীকার করে।

এভাবে সে অগণিত পুলিশ সদস্যের নিকট থেকে প্রতারণার ফাঁদ পেতে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন নামে নিবন্ধন করা বিকাশ এবং নগদের কয়েকটি সিম তার কাছে পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে জেলার মোহনপুর থানায় তার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। উক্ত মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে তাকে বিজ্ঞ আদালতে সোপার্দ করা হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :