রাজশাহী নগরীর ৬৪ হাজার শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

রাজশাহী নগরীর ৬৪ হাজার শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

রাজশাহী

লিয়াকত রাজশাহীঃ

জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২য় রাউন্ড  আগামী ৫ জুন থেকে ১৫ জুন ২০২১ পক্ষকালব্যাপী পালন উপলক্ষ্যে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের আয়োজনে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরভবনের সরিৎ দত্ত গুপ্ত সভাকক্ষে রাসিকের শিক্ষা, স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুরুজ্জামান টুকুর সভাপতিত্বে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্যানেল মেয়র সরিফুল ইসলাম বাবু বলেন, শিশুর অন্ধত্ব থেকে রক্ষা, রোগ প্রতিরোধ ‘ক্ষমতা বৃদ্ধিসহ শিশুর মৃত্যু ঝুঁকি কমাতে ভিটামিন ‘এ’ অপরিহার্য। ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল শিশুর জন্য নিরাপদ। কোন শিশু যেন ভিটামিন ‘এ’ খাওয়ানোর সরকারি এ কার্যক্রম থেকে বাদ না পড়ে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

শিশুর স্বাস্থ্যসুরক্ষায় ইপিআই কার্যক্রমে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাফল্য উল্লেখযোগ্য। মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের গতিশীল নেতৃত্বে বর্তমান পরিষদ রাজশাহী মহানগরীর উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। স্বাস্থ্যসেবা ও পরিবেশ উন্নয়নে নানান পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন কাজ এগিয়ে চলেছে। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই আগামী দিনের শিশুর স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সরকারী কর্মসূচি সুষ্ঠু ও সফলভাবে রাজশাহী মহানগরীতে পালনে এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে। 

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, রাজশাহী মহানগরীতে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পের মাধ্যমে ৬-১১ মাস বয়সী  ৮ হাজার ১২০ জন শিশুকে একটি নীল রঙের এবং  ভিটামিন ১২-৫৯ মাস বয়সী ৫৫ হাজার ৯৫৬ শিশুকে একটি লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন। এ প্লাস ক্যাম্পেইন ২য় রাউন্ড সুষ্ঠু ও  সফলভাবে বাস্তবায়নে ৩৮৪টি কেন্দ্রে ৭৬৮জন স্বেচ্ছাসেবী নিয়োজিত থাকবে। প্রতিটি কেন্দ্র সকাল ৮টা হতে ৪টা পর্যন্ত খোলা রাখা থাকবে।

মহানগরীতে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন পালন কার্যক্রম বিষয়ে সার্বিক চিত্র উপস্থাপন করেন রাসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ এফএএম আঞ্জুমান আরা বেগম।এ সময় রাসিকের ভ্যাটেনারি সার্জন ড. ফরাদ হোসেন, মেডিকেল অফিসার উম্মুল খায়ের ফাতিমা, মেডিকেল অফিসার মোঃ তারিকুল ইসলাম, ফুড এন্ড স্যানিটেশন অফিসার শেখ আরিফুল হক উপস্থিত ছিলেন। সভায় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার গণমাধ্যমকর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য করুন :